বৃহস্পতিবার, ১৯ মে, ২০২২

জাপান থেকে আসছে আরও ৬ লাখ ডোজ অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা

কূটনৈতিক প্রতিবেদক
|  ০৩ আগস্ট ২০২১, ১৫:১৯ | আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ১৬:০৭
ছবি: সংগৃহীত

জাপান থেকে তৃতীয় দফায় আরও ছয় লাখ ১৬ হাজার ৭৮০ ডোজ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা দেশে আসছে।

টোকিওতে বাংলাদেশ দূতাবাসের জানিয়েছে, সোমবার(২ আগস্ট) জাপানের স্থানীয় সময় রাত সোয়া ৯টায় নারিতা এয়ারপোর্ট থেকে টিকা নিয়ে অল নিপ্পন এয়ারওয়েজের (এএনএ) একটি কার্গো ফ্লাইট ছেড়ে আসে।

এরপর হংকং হয়ে ক্যাথে প্যাসিফিক এয়াওয়েজের কার্গো ফ্লাইটে মঙ্গলবার দেশে পৌঁছাবে তৃতীয় চালানের টিকা।

কোভ্যাক্স কর্মসূচির আওতায় জাপান থেকে আসা টিকা দিয়ে সোমবার থেকে দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় থাকা ব্যক্তিদের টিকা প্রয়োগ শুরু করেছে সরকার। সব মিলিয়ে জাপান থেকে আসা অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার সংখ্যা দাঁড়াচ্ছে ১৬ লাখ ৪৩ হাজার ৩০০ ডোজ।

কোভ্যাক্স কর্মসূচির আওতায় জাপান বাংলাদেশকে সর্বমোট ৩০ লাখ ডোজ টিকা উপহার পাঠানোর কথা জানিয়েছে। এর আগে দুই দফায় ১০ লাখ ২৬ হাজার ৫২০ ডোজ টিকা পাঠিয়েছিল দেশটি।

সোমবার টিকা পাঠানোর সময় নারিতা বিমানবন্দরে জাপানে বাংলাদেশ দূতাবাসের ইকোনমিক মিনিস্টার সৈয়দ নাসির এরশাদ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে, ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দিয়ে গত ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে গণটিকাদান শুরু হয়েছিল।

সেরাম ইনস্টিটিউটে  তৈরি কোভিশিল্ড টিকার ৩ কোটি ডোজ কিনতে চুক্তি করেছিল সরকার। কিন্তু ৭০ লাখ ডোজ আসার পর ভারত রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দিলে আর চালান আসেনি। এর বাইরে ভারত সরকার উপহার হিসেবে দিয়েছিল ওই টিকার ৩২ লাখ ডোজ।

এর মধ্যে বাংলাদেশ চীন থেকে টিকা কেনা শুরু করেছে। কোভ্যাক্সের আওতায় ফাইজার, মডার্নার কোভিড টিকাও এসেছে।

তবে যারা অ্যাস্ট্রাজেনেকার দুটি ডোজ নিতে পারেননি, তারা পড়েন বিপাকে। কারণ তাদের অন্য টিকাও দেওয়া যাচ্ছিল না। রোবাবর পর্যন্ত এই টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন ১৫ লাখ ২১ হাজার ৯৪৭ জন।